বিদায়কালীন লেখা

by Jahnabi Barooah

এখন তো প্রায় যাওয়ার সময়। কলকাতা থেকে বিদায় নেওয়ার সময়। সাত সপ্তার আগে আমি এখানে বাংলা শিক্ষার উদ্দেশ্যে এসেছিলাম। শিকাগো ছেড়ে আসার পর আমার খুবই ভালো লাগল। ওখানে আমি প্রায়ই খুশি থাকতাম না, বিশেষ করে বছরের শেষের দিকে, ক্লান্ত হ’য়ে পড়তাম, আর একটুকুও আনন্দ বোধ করতাম না।

এখানে এসেই পাখির মতন অবাধ-অব্যাহত-চিন্তাহীনতা অনুভব করলাম। কিন্তু কখনও ভাবতাম না যে কলকাতাতে এসে আমি এমন সুখ বোধ করব যে আমার আগেকার দুঃখ-যন্ত্রণা ভুলে যাব। এরমও বলা সম্ভব, যে নিজেকে সম্পূর্ণ নতুন মানুষ ব’লে অনুভব করছি। সত্যি বললে এই হচ্ছে নূতন ভাষা শেখা আর নূতন জায়গাতে বাস করার আনন্দ। নূতন ভাষা। নূতন দৃষ্টিভঙ্গি। আনন্দে থাকার জন্য এছাড়া আর কীই বা প্রযোজন? নূতন বন্ধুত্ব, ভালোবাসা, প্রেম–সবটাই পেলাম কলকাতার এই বর্ষাকালে।

এক হিসেবে কলকাতা ছেড়ে যাওয়ার পর আমার জীবন খুবই উত্তেজনাপূর্ণ হ’য়ে উঠবে। পরবর্তী সময়ে অনেক বড় বড় পরিবর্তন। আর তাছাড়া এই শহরের মনোহর সাংস্কৃতিক পরিবেশ–রবি ঠাকুরের গান আর কবিতা, সন্ধ্যা বেলার আড্ডা, বাংলা ভাষার মিষ্টত্ব–বিদেশে বাস করে এইগুলি আমার খুব মনে পড়বে। রবীন্দ্রনাথ গেয়েছিলেন–“শুধু যাওয়া আসা, শুধু স্রোতে ভাসা।” দ্রুত গতিতে বয়ে চলা জীবন কি এরকমই নয়? সুখ আর দুঃখ আসে আর যায়। তার মধ্যেই জীবন কাটাতে হয়। আমার হৃদয়ে এখন অদ্ভুত রকমের বিক্ষোভ। আশা করি যে কোনো এক দিন শান্তি পাব।

Advertisements