Jahnabi's Musings

Contemplating life in poetry, prose and pictures

জানালার বাইরে

image
বিমানের জানালার বাইরে উঁকি মারি দেখি–আকাশে বিবর্ণ মেঘ, দিগন্তে নীল পর্বতমালা আর পৃথিবীতে অসমদেশের রসালো মাটি। কানে বাজে দ্রুত ইঞ্জিনের ধ্বনি। আর মনে আমার অসীম কল্পনা।

বিদায়কালীন লেখা

এখন তো প্রায় যাওয়ার সময়। কলকাতা থেকে বিদায় নেওয়ার সময়। সাত সপ্তার আগে আমি এখানে বাংলা শিক্ষার উদ্দেশ্যে এসেছিলাম। শিকাগো ছেড়ে আসার পর আমার খুবই ভালো লাগল। ওখানে আমি প্রায়ই খুশি থাকতাম না, বিশেষ করে বছরের শেষের দিকে, ক্লান্ত হ’য়ে পড়তাম, আর একটুকুও আনন্দ বোধ করতাম না।

এখানে এসেই পাখির মতন অবাধ-অব্যাহত-চিন্তাহীনতা অনুভব করলাম। কিন্তু কখনও ভাবতাম না যে কলকাতাতে এসে আমি এমন সুখ বোধ করব যে আমার আগেকার দুঃখ-যন্ত্রণা ভুলে যাব। এরমও বলা সম্ভব, যে নিজেকে সম্পূর্ণ নতুন মানুষ ব’লে অনুভব করছি। সত্যি বললে এই হচ্ছে নূতন ভাষা শেখা আর নূতন জায়গাতে বাস করার আনন্দ। নূতন ভাষা। নূতন দৃষ্টিভঙ্গি। আনন্দে থাকার জন্য এছাড়া আর কীই বা প্রযোজন? নূতন বন্ধুত্ব, ভালোবাসা, প্রেম–সবটাই পেলাম কলকাতার এই বর্ষাকালে।

এক হিসেবে কলকাতা ছেড়ে যাওয়ার পর আমার জীবন খুবই উত্তেজনাপূর্ণ হ’য়ে উঠবে। পরবর্তী সময়ে অনেক বড় বড় পরিবর্তন। আর তাছাড়া এই শহরের মনোহর সাংস্কৃতিক পরিবেশ–রবি ঠাকুরের গান আর কবিতা, সন্ধ্যা বেলার আড্ডা, বাংলা ভাষার মিষ্টত্ব–বিদেশে বাস করে এইগুলি আমার খুব মনে পড়বে। রবীন্দ্রনাথ গেয়েছিলেন–“শুধু যাওয়া আসা, শুধু স্রোতে ভাসা।” দ্রুত গতিতে বয়ে চলা জীবন কি এরকমই নয়? সুখ আর দুঃখ আসে আর যায়। তার মধ্যেই জীবন কাটাতে হয়। আমার হৃদয়ে এখন অদ্ভুত রকমের বিক্ষোভ। আশা করি যে কোনো এক দিন শান্তি পাব।

Marigold.

2016-07-27 17.27.10
Garlands upon garlands of marigold flowers.

The Ganga

IMG_3432
কেমন করে গঙ্গা নদী–এত মহতী, বিশাল হওয়ার সত্ত্বেও–সামান্য ব্যক্তির জন্য আপন হ’য়ে যায়? কেমন করে ‘মা’ বলে ডাকার শক্তি দেয়?

Trees Grow out of Terracotta Temples

imageimageimage